সোমবার | ১৬ই মে, ২০২১ ইং | ৩রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | গ্রীষ্মকাল | ভোর ৫:৫৭ | রেজিঃ নং-

কেমন কাটবে লক্ষ্মীপুরের শিশু শ্রমিকদের ঈদ

Child Labour.jpg00 রাকিব হোসেন আপ্র: অর্থনৈতিক অভাব, পারিবারিক চাপ এবং প্রতিকূল পরিবেশের কারণে লক্ষ্মীপুরের শত শত শিশু পড়ালেখা ছেড়ে বিভিন্ন কাজে নিয়োজিত রয়েছে। এদের অনেকের বাবা নেই, আবার অনেকের থেকেও নেই। অনেকের মা আছে কিন্তু তিনি অশিক্ষিত। এর চেয়েও বড় সমস্যা হলো দারিদ্যের মাঝেও বড় পরিবার গঠন।

শিশু শ্রমিকদের অনেকে স্বেচ্ছায় আবার অনেকে দারিদ্যের রোষানলে পতিত হয়ে শারিরিক সব কঠোর কাজে নিয়োজিত হচ্ছে। কেমন কাটবে এসব শিশুদের ঈদ এমন চিন্তা হয়তো অনেকেই করেন না।

ওয়ার্কশপ কর্মী জাহিদ (১২) বলেন, আমার বাবা নেই। থাকারও জায়গা নেই। মা আর ছোট তিন ভাই-বোনকে নিয়ে ছোট্ট একটি ঘর ভাড়া নিয়ে থাকি। কাজ করে যা পাই তাই দিয়ে আমাদের সংসার চলে। ঈদে নতুন জামা গায়ে দেওয়ার শখ আমারও আছে। কিন্তু মা আর ছোট ভাই-বোনদের ছেড়ে আমি কিভাবে নতুন জামা গায়ে দিবো বলেন।

সিএনজি গ্যারেজ কর্মী সুজন (১৪) বলেন, আমাদের কাজগুলো অনেক কষ্টের। কিন্তু সেই হারে আমরা পারিশ্রমিক পাই না। ঈদেও কোনো বোনাসের সিস্টেম নেই। তবুও অনেক কষ্টে দিন কাটাচ্ছি। ঈদে পরিবারের সবার জন্য ফুটপাত থেকে জামা-কাপড় কিনবো আশা আছে। ঈদ তো একদিন, আল্লাহর রহমতে ভালোভাবে কেটে যাবে ঠিকই।

লক্ষ্মীপুরের বেশ কয়েকটি সামাজিক সংগঠনের উদ্যোগে হত দরিদ্র এসব শিশুদের মাঝে ঈদের নতুন জামা বিতরণ করা হয়েছে। ঈদ সামগ্রীও বিতরণ করেছে কিছু কিছু সংগঠন। লক্ষ্মীপুরের স্বেচ্ছাসেবী কর্মীদের অনেকেই এ বিষয়ে কাজ করার আগ্রহ দেখিয়েছেন। এদের অনেকে নিজের পাড়া-প্রতিবেশী এমন শিশুদের ঈদের নতুন জামা কিনে দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

লক্ষ্মীপুর থেকে ঢাকায় গিয়ে ফলের আড়তে কাজ করেছেন আরিফ (১৫) নামে এক শিশু। তার সাথে কথা বলে জানা গেছে, গ্রামের প্রতিকূল পরিবেশের কারণে ক্লাস সেভেন এর পরে আর পড়তে পারেন তিনি। পারিবারিক দারিদ্য বিমোচনের উদ্দেশ্যে ঢাকায় চলে যান। কিন্তু সেখানে কঠোর পরিশ্রম করেও টিকতে পারেন নি তিনি। মালিকের গালমন্দ আর মারধরের মূখে গ্রামে ফিরে আসতে বাধ্য হন তিনি। গত রোববার তিনি তার গ্রামের বাড়িতে ফিরে এসেছেন।

লক্ষ্মীপুরের জেলা প্রশাসক হোমায়রা বেগম জানান, শিশুরা শ্রমিক হিসেবে কাজ করবে এটা সত্যিই অপ্রত্যাশিত। এ জেলায় যেসব শিশু বিভিন্ন কারণে শিক্ষা বঞ্চিত হয়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে শ্রম দিচ্ছে তাদের সহযোগিতায় লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসন বিভিন্ন কর্মসূচী হাতে নিয়েছে। এছাড়াও এসব শিশুদের ঈদকে বর্ণিল সাজে সাজাতে জেলা প্রশাসন সহযোগিতা করবে বলে জানান তিনি। পাশাপাশি সর্বস্তরের মানুষকে আর্তমানবতার সেবায় নিয়োজিত হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

Comments are closed.



সম্পাদক ও প্রকাশক:

মোঃ সহিদুল ইসলাম (সহিদ)

প্রধান কার্যালয়ঃ

বার্তা বিভাগঃ এস,এ পরিবহনের পিছনে
উত্তর তেমুহনী বাসষ্ট্যান্ড, সদর, লক্ষ্মীপুর।

সম্পাদকীয়ঃ বিআরডিবি ওয়ার্কশফ ভবন
বাগবাড়ী, সদর, লক্ষ্মীপুর।

ই-মেইলঃ newsdailyrob@gmail.com, মোবাইলঃ 01712256555, 01620759129

Copyright © 2016 All rights reserved www.rnb24.com

Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com