রায়পুরে আনন্দ মিছিলে সংঘর্ষ থামাতে আ.লীগ নেতার ফাঁকা গুলি, হার্ট অ্যাটাকে মৃত্যু

রায়পুর সংবাদদাতা :
রায়পুর সংবাদদাতা : রায়পুর সংবাদদাতা :
প্রকাশিত: ৪:৫৯ অপরাহ্ন, ২৪ মে ২০২৪ | আপডেট: ৭:১৬ পূর্বাহ্ন, ২৩ জুন ২০২৪

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা ও সংঘর্ষ থামাতে আওয়ামী লীগ নেতা জামিল খান নিজের শটগান থেকে ফাঁকা গুলি ছোড়ার পর পরই আবার হার্ট অ্যাটাক করেন তিনি। পরে হাসপাতালেনেওয়ারপর তিনি মারা যান।  এদিকে ওই সংঘর্ষে ৮ জন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিজয়ী চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মামুনুর রশীদের পক্ষে আনন্দ মিছিল হয়। পরে উত্তর চরবংশী ইউপির তালতলা বাজারের পাশে আবুল কাশেমের চায়ের দোকানের সামনে অবস্থান নেয় কিছু নেতাকর্মী। এ সময় আওয়ামী লীগ কর্মী সবুজ তার সিনিয়র কর্মী বকুলের কাছে সিগারেট চায়। এতে বকুল ক্ষিপ্ত হয়ে সবুজকে থাপ্পড় মারে। একপর্যায়ে দুপক্ষের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। তাদের থামাতে আওয়ামী লীগ নেতা জামিল খান তার শটগান দিয়ে এক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়েন এবং চিৎকার করে তাদের শান্ত হতে বলেন। এরপরই তিনি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। জামিল খান উত্তর চরবংশী ইউনিয়নের বাসিন্দা। তিনি ওই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য ছিলেন। স্ত্রী জোসনা বলেন, আমার স্বামী হার্ট অ্যাটাকে মারা গেছেন।

এর আগে সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ৮ জন আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে গুরুতর আহত সবুজের মামা নুরনবীকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। তার মাথায় কোপানো হয়েছে।